কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসেবে চাকরিঃ দায়িত্ব, বেতন, এবং অন্যান্য

Comments · 93 Views

প্রতিটি ব্যবসার সমৃদ্ধিই তার গ্রাহকদের উপর নির্ভরশীল, কারণ গ্রাহকদের সাথে সম্পর্ক অনেকাংশে ব্যবসার বৃদ্ধি ??

আজকের লেখায় আমরা কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ পদে চাকরি, দায়িত্ব, বেতন এবং বাংলাদেশে কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ চাকরির বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করবো। 

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ কেমন চাকরি? 

বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে কাস্টমার সার্ভিস চাকরিগুলো বেশ জনপ্রিয়, কিন্তু এই ধরণের চাকরিগুলোকে অনেকেই আমাদের দেশে ‘ব্যাকআপ ক্যারিয়ার’ হিসাবে ধরে থাকেন কেননা অল্প অভিজ্ঞতা এবং যেকোনো ব্যাকগ্রাউন্ড থেকেই এই ইন্ডাস্ট্রিতে প্রবেশ করা যায়।

কাস্টমার সার্ভিসকে যেকোনো সংস্থার সাফল্যের মূল হিসাবে ধরা হয় কারণ কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভরা গ্রাহক এবং সংস্থার মধ্যে অর্থপূর্ণ সম্পর্ক তৈরিতে সরাসরি ভূমিকা রাখে।

কাস্টমার সার্ভিস নিঃসন্দেহে যেকোনো প্রতিষ্ঠানের জন্য সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ একটি ডিপার্টমেন্ট; বেশিরভাগ ভোক্তাই প্রতিষ্ঠানের কাস্টমার সার্ভিসের উপর ভিত্তি করে তাদের কোনো পণ্য বা সার্ভিস বেছে নেয়। একজন কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসেবে, পুরোনো গ্রাহক ফিরিয়ে আনার মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানের সামগ্রিক লভ্যাংশে ভূমিকা রাখা যেতে পারে।

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসেবে চাকরি করার যেসমস্ত সুবিধা

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসাবে কাজ করার সময় বিভিন্ন দক্ষতা অর্জন করতে পারেন। যার মধ্যে রয়েছেঃ 

  • সেলস সম্পর্কিত স্কিল- গ্রাহকদের কাছে আপনার পণ্য/সেবা বর্ণনা করা আপনাকে সেলস সম্পর্কে আরও ভালো বুঝতে সাহায্য করবে। আপনি পূর্বের দক্ষতা থেকে পণ্য/সার্ভিস সম্পর্কে ক্লায়েন্টদের পিচ করতে পারবেন।
  • মার্কেটিং স্কিল- পণ্য সম্পর্কিত জ্ঞান মার্কেটারদের জন্য একইভাবে অপরিহার্য। আপনি মার্কেট রিসার্চ করতে, একটি ব্লগ লিখতে বা সোশ্যাল মিডিয়ায় বিভিন্ন কন্টেন্ট পোস্ট করতে চাইলে, সকল ক্ষেত্রেই পণ্যের ব্যাপারে পর্যাপ্ত জানাশোনা এবং যোগাযোগ দক্ষতা আপনাকে আপনার মার্কেটিং ক্যারিয়ারে এগিয়ে যেতে সাহায্য করবে।
  • প্রোডাক্ট ডেভেলপমেন্ট স্কিল- পণ্যের ব্যাপারে স্পষ্ট ধারণা আপনাকে পণ্যটি তৈরি করার ক্ষেত্রেও সাহায্য করতে পারে।

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসেবে কাজ করার জন্য প্রয়োজনীয় দক্ষতা

১. মানসিক বুদ্ধিমত্তার বিকাশঃ এটা দেখা গেছে যে কাস্টমার সার্ভিস রোলে যারা কাজ করে থাকেন তাদের চমৎকার পিপল স্কিলস রয়েছে। আপনাকে এই ভূমিকায় গ্রাহকদের সমস্যা সমাধানে তাদেরকে সহায়তা করতে হবে। কাজের সূত্রে মাঝে মাঝে আপনি আপত্তিকর ভাষা ও কঠোর গ্রাহকদের মুখোমুখি হতে পারেন, সেসময়ে আপনাকে স্থিরতার সাথে নিজেকে পরিচালিত করতে হবে এবং সেসকল গ্রাহকদের আরও ভালোভাবে সহায়তা করার উদ্দেশ্যে মনোযোগ সহকারে তাদের কথা শুনতে হবে।

২. পণ্য ও সার্ভিস সম্পর্কে আরও গভীর জ্ঞান অর্জনঃ কাস্টমার সার্ভিস সম্পর্কে ভালো ধারণা অর্জন করতে, আপনার পণ্য বা সার্ভিসের ব্যাপারে গভীর জ্ঞান থাকতে হবে যাতে আপনি দ্রুত এবং কার্যকরভাবে গ্রাহকদের সে সম্পর্কিত উত্তর দিতে পারেন। পণ্য/সার্ভিস সম্পর্কে আরও জানার ফলে আপনি একজন সাবজেক্ট ম্যাটার এক্সপার্ট হয়ে উঠবেন – যা ভবিষ্যতে আপনার ক্যারিয়ারের জন্য অন্যান্য দরজাগুলোও খুলে দিবে।

৩. বিভিন্ন কমিউনিকেশন মিডিয়া সম্পর্কে জ্ঞানঃ কাস্টমার সাপোর্ট এক্সিকিউটিভ হিসেবে কাজ করার জন্য আপনার নানান মিডিয়া চ্যানেলে কাজের অভিজ্ঞতার প্রয়োজন হতে পারে। যার মধ্যে রয়েছেঃ

  • লাইভ চ্যাট
  • সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম
  • ফোন কল
  • ইমেইল

৪. সমস্যা সমাধানের দক্ষতাঃ সর্বোপরি একজন কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ-এর কাজ হলো আপনার গ্রাহকদের সাহায্য করা এবং তাদের সমস্যার সমাধান করা। দীর্ঘ পদক্ষেপ হোক বা দ্রুত, গ্রাহকের প্রতিটি সমস্যার জন্য পিপল স্কিলস, সৃজনশীল চিন্তাভাবনা এবং বিষয়ভিত্তিক দক্ষতার প্রয়োজন হয়ে থাকে। দ্রুত, কার্যকরভাবে এবং কূটনৈতিক উপায়ে সমস্যার সমাধান করা ২১ শতকের জন্য একটি প্রয়োজনীয় দক্ষতা।

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ-এর কাজ ও দায়িত্ব

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসেবে পালন করা বিভিন্ন দায়িত্বের মধ্যে, আমরা এখানে কিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করছিঃ

  • প্রচুর পরিমাণে ইনকামিং ফোন কল পরিচালনা করা
  • গ্রাহক সমস্যা চিহ্নিতকরণ এবং সমাধান করা
  • ইন্টারেক্টিভ যোগাযোগের মাধ্যমে গ্রাহকদের সাথে টেকসই সম্পর্ক গড়ে তোলা
  • গ্রাহকদের সঠিক, বৈধ এবং আপডেটেড তথ্য প্রদান করা
  • গ্রাহকের অভিযোগগুলো যাচাই করা এবং নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে উপযুক্ত সমাধান প্রদান করা
  • যোগাযোগের পদ্ধতি, নীতি এবং নির্দেশিকা অনুসরণ করা

বাংলাদেশে কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ চাকরি পেতে যা প্রয়োজন

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ বা কাস্টমার সার্ভিস রিপ্রেজেন্টেটিভ পদের জন্য বিবেচিত হওয়ার জন্য আপনার অবশ্যই যেসকল দক্ষতা এবং অন্যান্য গুণাবলী থাকতে হবেঃ

  • ব্যবসায় প্রশাসন অথবা এই সম্পর্কিত ক্ষেত্রে স্নাতক ডিগ্রি
  • দলীয় ভাবে কাজ করার সক্ষমতা
  • গ্রাহকের অভিযোগ সমাধান করার ক্ষেত্রে দ্রুত সমস্যা সমাধানের দক্ষতা
  • কার্যকর যোগাযোগ দক্ষতা
  • কঠিন পরিস্থিতি পরিচালনা করার সক্ষমতা
  • মনোযোগ সহকারে গ্রাহকের চাহিদা জানার সক্ষমতা
  • যোগাযোগ করার সঠিক শিষ্টাচার
  • স্পষ্টভাবে কথা বলতে পারা 

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ হিসেবে চাকরি পাওয়ার জন্য উপরে উল্লিখিত দক্ষতাগুলো অপরিহার্য, তাই ফ্রেশাররা এই দক্ষতাগুলোর মধ্যে কয়েকটি উল্লেখ করতে এবং তাদের সিভিতে রাখতে পারে যাতে তাদের ব্যাপারে প্রতিষ্ঠানের একটি ভালো ধারণা তৈরি হয়।

কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ চাকরির পে-স্কেল

দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে, বাংলাদেশে একজন কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ মাসে প্রায় ১০,০০০ – ৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত উপার্জন করতে পারেন।

গড় মাসিক বেতন সাধারণত বাসস্থান, ট্রান্সপোর্টেশন, এবং অন্যান্য সুবিধার উপর গণনা করা হয়ে থাকে। এছাড়াও বাংলাদেশে কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ-এর বেতন জেন্ডার, লোকেশন, দক্ষতা এবং অভিজ্ঞতার উপর নির্ভর করে থাকে।

শেষ কথা

বাংলাদেশে বেশিরভাগ মানুষ কাস্টমার সার্ভিস সংক্রান্ত চাকরিগুলোকে এন্ট্রি-লেভেল চাকরি হিসেবেই দেখে থাকেন। ফ্রেশারদের জন্য সুযোগ থাকলেও বর্তমানে অভিজ্ঞদের জন্য এই খাতে প্রচুর কাজের চাহিদা রয়েছে।

আপনি হয়তো আপনার প্রথম চাকরি খুঁজছেন বা একটি নতুন পেশায় নিজেকে আনার চেষ্টা করছেন, এই ক্ষেত্রে কাস্টমার সার্ভিস চাকরিগুলো আপনাকে নানান সুযোগ অফার করে থাকে যা আপনাকে আপনার ভবিষ্যত গঠনে সহায়তা করবে।

বাংলাদেশে কাস্টমার সার্ভিস এক্সিকিউটিভ চাকরি এবং ট্রেন্ড সম্পর্কে আরও জানতে এন্ট্রি-লেভেল এবং দক্ষতা ভিত্তিক চাকরির জন্য #১ নাম্বার জব পোর্টাল https://justnock.com/jobs থেকে ঘুরে আসতে পারেন।

আপনার সুখ এবং সাফল্য কামনা করছি!

Comments